তারিখ : ২৩ অক্টোবর ২০২০, শুক্রবার

সংবাদ শিরোনাম

ভালুকার করোনা আপডেট

২৯ জুন ২০২০, সোমবার
আক্রান্ত
২৪ ঘন্টা মোট
৫ জন ২২৯ জন
সুস্থ
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ৮২ জন
মৃত্যু
২৪ ঘন্টা মোট
০ জন ৩ জন

বিস্তারিত বিষয়

শ্রীপুরে উজাড় হচ্ছে বন,গড়ে উঠছে বসতবাড়ি

শ্রীপুরে উজাড় হচ্ছে বন,গড়ে উঠছে বসতবাড়ি
[ভালুকা ডট কম : ১৫ জুলাই]
গাজীপুরে শ্রীপুর উপজেলার সাতখামাইর বিটের আওতাধীন উত্তর পেলাইদ এলাকায় বিস্তীর্ণ বন উজাড় করে স্থানীয় বন কর্মচারীদের সহায়তায় টাকার বিনিময়ে গড়ে উঠছে বসতবাড়ি। দিনে রাতে বনের গাছ কেটে জঙ্গল পরিস্কার করে বনের জায়গা দখল করে গড়ে তোলা হচ্ছে বাড়ি। স্থানীয় দালালদের মাধ্যমে বনর্কমর্কতাদের যোগসাজছে টাকার বিনিময়ে এসব বাড়ি নির্মাণ করছেন। তবে টাকা নেয়ার বিষয়টি বনর্কমর্কতা অস্বীকার করেছেন।

ভাওয়াল পরগণার শ্রীপুর উপজেলার টেংরা, সাইটালিয়া, সাতখামাইর, পেলাইদ ও তেলিহাটি মৌজার প্রায় হাজার একর জমি নিয়ে সমৃদ্ধ ছিল সাইটমনিগড় (স্থানীয় নাম)। এক সময় সংরক্ষিত এই বনাঞ্চল ছিল শাল, গজারিসহ বিভিন্ন প্রজাতির ভেষজ, বনজ উদ্ভিদ। কালের পরিক্রমায় উদ্ভিদের জায়গায়তে দখল করে সামাজিক বনায়নের নামে উডলট বাগান। বন কর্মচারীদের সহায়তায় সেই বাগান পরিষ্কার করে বসতবাড়ি নির্মাণ করছেন স্থাণীয়রা।

স্থানীয় বনের গার্ড বদিউজ্জামান ভূঁইয়া সমাজের স্বল্প আয়ের সাধারণ মানুষের কাছ থেকে টাকা নিয়ে বসতবাড়ি নির্মাণে করার মৌখিক অনুমতি দিচ্ছেন। উত্তর পেলাইদ গ্রামে (সুইক্কারচালা) বন কেটে একটি টিনসেড ঘর নির্মাণ করছেন কুলছুম আক্তার। তিনি বলেন, স্থাণীয় তমিজ উদ্দিন, আব্দুল মালেক,সাঈদ মাষ্টারের সাথে সমন্বয় করে স্থানীয় বনের সাতক্ষামাইর বিটের বন প্রহরী বদিউজ্জামান ভূঁইয়া তাকে বাড়ি বানানোর মৌখিক অনুমতি দিয়েছেন। ওই চালায় ৮/১০টি বাড়ির নির্মাণ কাজ চলছে।

ওই এলাকার শিক্ষক শহিদুল ইসলাম বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ ওই এলাকাসহ আশপাশের বনের জমিতে বসত বাড়ি তৈরীর করার হিড়িক পড়েছে। একটি পরিবার বনের জমিতে বাড়ি করার সুযোগ পেলে তাকে দেখে আরও অনেকেই বাড়ি করতে আগ্রহী হচ্ছে। এমন চলতে থাকলে একটা সময় হয়তো বনই ধ্বংস হয়ে যাবে।

টাকা নেয়ার বিষয়টি অস্বীকার করে গার্ড বদিউজ্জামান ভূঁইয়া বলেন, কেউ হয়তো ব্যক্তি স্বার্থ হাসিল করতে না পেরে এমন অভিযোগ তুলেছেন। তবে বনের জমিতে খুবই গরীব-অসহায় মানুষ বাড়ি নির্মাণ করেন। এখানে মানবিক দিক বিবেচনায় অনেক সময় কঠোর সিদ্ধান্ত নেয়া কঠিন হয়ে পড়ে।

শ্রীপুর বনর্কমর্কতা রেঞ্জ কর্মকর্তা আনিছুর রহমান বলেন, বনের জমিতে বসতবাড়িসহ কোন ধরনের স্থাপনা নির্মাণের নিয়ম নেই। কোথায় এধরনের নিয়মের ব্যতিক্রম ঘটলে বনের জমি রক্ষায় উচ্ছেদসহ দখলকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।#




সতর্কীকরণ

সতর্কীকরণ : কলাম বিভাগটি ব্যাক্তির স্বাধীন মত প্রকাশের জন্য,আমরা বিশ্বাস করি ব্যাক্তির কথা বলার পূর্ণ স্বাধীনতায় তাই কলাম বিভাগের লিখা সমূহ এবং যে কোন প্রকারের মন্তব্যর জন্য ভালুকা ডট কম কর্তৃপক্ষ দায়ী নয় । প্রত্যেক ব্যাক্তি তার নিজ দ্বায়ীত্বে তার মন্তব্য বা লিখা প্রকাশের জন্য কর্তৃপক্ষ কে দিচ্ছেন ।

কমেন্ট

অনুসন্ধানী প্রতিবেদন বিভাগের অন্যান্য সংবাদ

সর্বশেষ সংবাদ

অনলাইন জরিপ

  • ভালুকা ডট কম এর নতুন কাজ আপনার কাছে ভাল লাগছে ?
    ভোট দিয়েছেন ১২৮৩ জন
    হ্যাঁ
    না
    মন্তব্য নেই